৪ কাছেপিঠে উইকেন্ড ট্রিপ

মাটির বাড়ি,ইছামতীর ধারে,বনের হরিণ,ক্ষেতের সব্জী,১৭শ শতাব্দীর টেরাকোটা মন্দির,পাখিরালয়….

আরও আকাশকামারপাড়া,শান্তিনিকেতন  

মাটির বাড়ি,নিজস্ব চাষের ক্ষেত্রে,নিরালা নির্জনে গ্রামের বাড়িতে থাকার দারুণ আনন্দ।

বোলপুর স্টেশন থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে কামারপাড়া গ্রামে আরও আকাশ।

এখানে থাকার ঘরের নামগুলো বেশ সুন্দর।এক্কা আর দোক্কা।এক্কা দোক্কার মাঝের দরজাটাও খুব মনোরম। ম্যানেজার বাসুদা আর সকল কাজের কাজী লালদার আন্তরিক আপ্যায়নে মন ভরে যাবে।

এই সময়ে নির্জন প্রকৃতির মাঝে গ্রামের মাটির বাড়িতে দোলনা,আরামকেদারা, দাওয়ায় খাটিয়ায় বসে ঘি আর চিনি মাখা মুড়ি,ক্ষেতের অর্গানিক সব্জী,পুকুরের মাছের তাজা স্বাদের মহিমা পাবেন।বিকেলে কাছের লক্ষীসায়র  দীঘিতে ঘুরে আসুন। সঙ্গে করে যদি ‘নির্বাচিত ভূতের গল্প সংকলন’ নিয়ে যান সেটা সন্ধ্যেবেলায় ওখানে পড়তে বা সঙ্গের সাথীদের পড়ে শোনাতে একটা আলাদা থ্রিল অনুভব করবেন।

আরও আকাশ বুকিং যোগাযোগ: 09830181462 

ছবি ঋণঃ সুনেত্রা লাহিড়ী 

পুরুলিয়া

এখন সম্ভবত বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের সবচেয়ে আকর্ষণীয় উইকেন্ড স্পট।পাহাড় জঙ্গল ঘেরা বাংলার ঐতিহ্যশালী কৃষ্টি বিজড়িত পুরুলিয়ার মাহাত্ম্য অপরিসীম।

সাঁওতাল,কুর্মি,মাহাতো,কালিন্দীদের বিখ্যাত ‘ছৌ’ নাচ,মুখোশ যার মধ্যে মার্শাল আর্ট সম্বলিত দক্ষিণ ভারতের ‘জালিকাট্টুর কিছু সাদৃশ্য আছে।এছাড়া ঝুমুর,পট নৃত্যশৈলীর উদ্ভব এখন থেকেই।

এখানে  অযোধ্যা পাহাড়,গড় পঞ্চকোট,জয়চন্ডী পাহাড়, ১৭শ শতাব্দীর টেরাকোটা চেলিয়ামা মন্দির,মাথা পাহাড় ,পাহাড় ঘেরা বাঘমুন্ডি , বড়ন্তি,খৈরাবেড়া লেক,তুগ্গা আর ব্রাহ্মণী ফলস, লালমোহনবাবুর ভাষায় ‘আর কত চাই আপনার’?

একটি উইকেন্ডে এত জায়গা মনমত ঘোরা কঠিন তাই এর মধ্যে থেকে আপনার পছন্দ অনুযায়ী জায়গা দেখে খোঁজখবর নিয়ে বুকিং করে বেরিয়ে পড়ুন।

কিছু হদিশ:

অযোধ্যা হিল টপ ট্যুরিস্ট লজ : 072787 49304,জয়চন্ডী হিল রিসোর্ট:070767 03187,বড়ন্তি ইকো ট্যুরিজম:074079 71456

ইছামতীর ধারে

‘ঘর হতে শুধু দুই পা ফেলিয়া’ বিভূতিভূষণের স্মৃতিবিজড়িত ইছামতীর ধারে কিছু মনোরম ঠিকানা:

গোবরডাঙার কঙ্কণা

গোবরডাঙ্গা স্টেশন থেকে ৬ কিলোমিটার দূরে ইছামতীর উপনদী যমুনা নিজেকে ভেঙে বাঁওড়ে ঘোড়ার ক্ষুরের মত হ্রদ বানিয়েছে যার নামও খুব সুন্দর-কঙ্কণা। বাঁওড়ের আশে পাশে ছোট ছোট গ্রাম,মাছের ভেড়ি,জেলে নৌকায় সাজানো ছবির মত গ্রামীণ জনপদ।

কিভাবে যাবেন  – গাড়িতে অথবা শিয়ালদা থেকে গোবরডাঙ্গা স্টেশনে নেমে ভ্যান রিকশা।

চাঁদপাড়ার ডুমা

চাঁদপাড়ার ইছামতী বেঁকেচুরে আপন খেয়ালে চলেছে।এখানেও বাঁওড় আছে। নদীর পথে কিছুটা এগিয়েই ভারত বাংলাদেশ সীমান্ত ।এখানকার মানুষ খুব আন্তরিক,চলার পথে কুশল জানতে চায়।

কিভাবে যাবেন:শিয়ালদা থেকে বনগাঁর ট্রেনে চাঁদপাড়া স্টেশন।

পারমাদান

পোশাকি নাম বিভূতিভূষণ অভয়ারণ্য। কিছু দূরেই তাঁর বাড়ি ঘুরে আসা যায়। ইছামতীর তীর ঘিরে জঙ্গল শুরু,হরিণ ঘুরছে,নৌকা ভাড়া করে ইছামতীর বুকে বেরিয়ে আসুন।

থাকার জন্য : বন দপ্তরের বাংলো-ফরেস্ট ডেভেলপমেন্ট অফিস ৬ রাজা সুবোধ মল্লিক স্কোয়ার.

ফোন:22250968

তথ্য ঋণঃ স্বপ্নময় চক্রবর্তী               

            

চুপি পাখিরালয়

বর্ধমানের পূর্বস্থলীর চুপি পাখিরালয়।গ্রাম বাংলার ‘ছায়া সুনিবিড় শান্তির নীড়’ প্রতক্ষ্য করবেন।পাশ দিয়ে বয়ে চলা ছাড়িগঙ্গার পারে হাজার পাখির নিবাস।পরিযায়ী পাখিদের বিচরণ ক্ষেত্র।ছোট নৌকায় চেপে ঘুরে বেরিয়ে পাখি দেখুন।  লেসার হুইস্টলিং টিলস,রেড ক্রেস্টেড পোচার্ড,মার্শ স্যান্ডপাইপার,ব্ল্যাক ড্রঙ্গো,ব্রোঞ্জ উইংড জ্যাকানা আরও অজস্র দেশি বিদেশী পাখি। এখানে আছে ওয়াচ টাওয়ার,দোলনা,ইকো পার্ক।  

কাছেপিঠে চুপি হাটতলার প্রাচীন শিব,দোল মন্দির, জামালপুরের বুড়োরাজের মন্দির।

থাকার জন্য:সরকারি গেস্ট হাউস.যোগাযোগ :09832196271 . www.chupi.co.in

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *