৫ স্কার্ফ স্টাইল

বিখ্যাত ফ্যাশন ডিজাইনার ভ্যানেসা রড্রিগেজের টিপস।

যে কোনও ড্রেসের সঙ্গে আমাদের উষ্ণ রাখতে ম্যাচিং স্কার্ফ এখন ফ্যাশন আর স্টাইল কোশেন্টে বেশ জরুরি আর ওয়ার্ডরোব এসেন্সিয়ালস।স্কার্ফের সুবিধে হল এটা যে কোনও অকেশন আর ড্রেসের সঙ্গে যেমন প্রফেশনাল,ক্যাজুয়াল,পার্টির সঙ্গে ক্যারি করা যায়।স্কার্ফ নানা ধরণের কাপড়ের,রঙের,শেপের আর সাইজের হওয়ার জন্য এর স্টাইলও আলাদা।

ব্ল্যাঙ্কেট স্কার্ফ:

ব্ল্যাঙ্কেট স্কার্ফ একটু বড় হওয়ার কারণে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই তাই সঠিক স্টাইল বাঞ্ছনীয়।ঘাড়ের কাছে ঘুরিয়ে সামনে ফেলে রাখুন এইভাবে।স্কার্ফকে হাফ করে ট্রায়াঙ্গাল করে নিন যার দু ধার ঘাড়ের কাছে থাকবে আর ট্রায়াঙ্গাল বুকের ওপর।

ইনফিনিটি স্কার্ফ:

লুপের জন্য পরা আর ক্যারি করা খুব সহজ।জ্যাকেটের আর স্কার্ফের কালার ফ্যামিলি যেমন গ্রে আর ব্ল্যাক, ম্যাচ করে পরলে তো কথাই নেই।ছোট লুপের ক্ষেত্রে দু ভাঁজ আর বড় লুপের ক্ষেত্রে এক ভাঁজেই কেল্লাফতে।তার সঙ্গে স্কিনি জিন্স আর লেপার্ড প্রিন্ট হিলস/এই ইনফিনিটি স্কার্ফ, লেগিংস, কার্ডিগানের সঙ্গেও খুব ভাল ম্যাচ করে।  

সিল্ক স্কার্ফ:

কাজের জায়গায় খুব ভাল মানায়।নানা রং আর প্যাটার্নের সমাহারে সলিড কালারের সঙ্গে দারুন ম্যাচিং।সিল্ক স্কার্ফ কে নেক স্কার্ফ হিসেবে ব্যবহার করা যায়।রোল করে দুবার ঘুরিয়ে গলার কাছে একটা ছোট্ট গিঁট।সবচেয়ে ভাল মানায় ব্লেজারের সঙ্গে।

স্কার্ফ আর সোয়েটার ইশস্টাইল:

যখনই সোয়েটার পরে মনে হবে একটু খালি খালি লাগছে সঙ্গে একটা স্কার্ফ নিলেই পুরো জমে যাবে।সলিড কালার সোয়েটারের সঙ্গে চেক স্কার্ফ দারুন মানানসই।

ট্র্যাভেলিং স্কার্ফ: বেড়াতে বা লং ডিস্টেন্সের আনপ্রেডিক্টেবল ওয়েদারের জন্য স্কার্ফ মাস্ট। ব্ল্যাক,গ্রে,ব্রাউন,বেইজ আর নেভি ব্লু সাধারণত সব রঙের ড্রেসের সঙ্গেই ম্যাচ করে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *