ছবিঃ অমিতাভ বচ্চন ইন্সটাগ্রাম।

সব বয়েসের ন্যাচারাল বিউটি টিপস

বিভিন্ন বয়সের স্কিন,হেয়ার কেয়ার, ডায়েট,বিউটি টিপস।

পিউবার্টি থেকে শরীরে নানা পরিবর্তন আসে আর সবাই চেষ্টা করে নিজেকে সুন্দর, অ্যাট্রাক্টিভ রাখতে। প্রত্যেক বয়েসের নিজস্ব স্বাভাবিক রূপ,সৌন্দর্য্য আছে।বয়সভিত্তিক কিছু ন্যাচারাল বিউটি টিপস :

১৫-২৫

স্কিন কেয়ার

  • এই বয়েসে ন্যাচারাল বিউটি বাজিমাত করে দেয় তাই হেভি মেকাপের কোনও দরকার নেই।তোমার চোখ যদি এমনিতেই খুব আকর্ষণীয় হয় তাহলে তাতে হেভি আই শ্যাডো,লাইনারের কোনও প্রয়োজন নেই।এই বয়েসে হেভি মেকাপ মুখকে অনেক বয়স্ক দেখায়।
  • স্কিন কেয়ারের জন্য আগে জানা জরুরি স্কিনের টাইপ,ড্রাই,ন্যাচারাল না অয়েলি কারণ এর প্রত্যেকের যত্নের পদ্ধতি আলাদা। সর্বসম্মত স্বীকৃত কিছু পদ্ধতি হলঃ
  • বেসন,দুধ,ময়দা আর তেলের প্যাক।এর রেগুলার ব্যবহারে স্কিনে দারুণ জেল্লা আসে।
  • মুখের সঙ্গে হাত,পা শরীরের অন্যান্য অংশেরও যত্ন নিতে হবে।পায়ের নখ কেটে গরম জলে পা ডুবিয়ে নরম কাপড় দিয়ে ঘষে পরিষ্কার করা।
  • ফাটা গোড়ালির জন্য একদিন অন্তর পিউমিট স্টোন দিয়ে ঘষে ডেড স্কিন তুলে ফেলতে হবে।
  • পেট্রিলিয়াম জেলি অথবা ফুট ক্রিম মাখা যেতে পারে।       

হেয়ার কেয়ার

  • এই বয়েসে বেশি কালার,স্ট্রেটনিং না করা চুলের দীর্ঘকালীন সতেজ,কালো,তাজা থাকার পক্ষে ভাল কারণ বেশি করলে চুলের টেক্সচার নষ্ট হয়ে যায়।
  • মাঝে মাঝে হাফ ইঞ্চি চুল ছাঁটা দরকার।
  • সপ্তাহে দুদিন মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নেওয়া আর ধোওয়ার আগে জট ছাড়িয়ে নেওয়া।
  • সপ্তাহে একদিন কন্ডিশনার আর একদিন হট অয়েল ম্যাসাজ দু তিন ঘন্টা।

টিন এজ স্পেশাল কেয়ার

  • বয়ঃসন্ধির বিশেষ কিছু যত্নের প্রয়োজন। যেমন কুড়িতে পড়লেই স্কিনে চেঞ্জ আসে। সেবাম সিক্রিয়েশন কম হয় তাই স্কিন বুঝে ময়েশ্চারাইজার  ব্যবহার বাড়ানো দরকার। 
  • চুলের পুষ্টির জন্য ড্ৰাই হেয়ার হলে ১ ডিম.১ চামচ ভিনিগার,১ চামচ অলিভ অয়েল লাগিয়ে হাল্কা ম্যাসেজ করে মিনিট ১৫ রেখে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।
  • অয়েলি হেয়ার হলে ৫০ গ্রাম টকদই,১ ডিমের কুসুম মিশিয়ে শ্যাম্পু করা শুকনো চুলে আধঘন্টা লাগিয়ে রেখে হাল্কা গরম জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।
  • টিনএজে মেয়েদের আয়রনের ঘাটতি দেখা দেয়। ক্লান্তি এড়াতে ডায়েটে রাখতেই হবেঃ

ডিমের কুসুম,মুরগির মাংস, পালংশাক, ডুমুর, থোড়, মোচা, কাঁচকলা, মাছ, বিনস, পাস্তা, কিশমিশ,ছোলা,চকোলেট,কোকো পাউডার, ব্রকোলি, কাঠবাদাম, কর্ন, গাজর, তরমুজ, টোম্যাটো,মুসুরির ডাল,কড়াইশুঁটি,সয়াবিন,চিজ,ওট্স।

২৫-৪০

হরমোনের পরিবর্তন দূষণ,স্ট্রেস সৌন্দর্যে থাবা বসায়।

স্কিন কেয়ার

  • ৩০ এলেই স্কিনে ভাঁজ পড়তে শুরু করে।রিঙ্কেলস রুখতে রেটিনল যুক্ত ক্রীম,অ্যান্টি এজিং ক্রীম স্কিন কেয়ার স্পেশালিস্টের পরামর্শ নিয়ে ব্যবহার করতে হবে।
  • এক্সফলিয়েশন করে ডেড সেলস ঝরিয়ে ফেলতে হবে।
  • ফেসিয়াল ক্রীম আপওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে স্কিনের স্যাগিং এড়াতে।
  • ঘুম থেকে ওঠার পর আর রাতে ঘুমোনোর আগে গোলাপ জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

হেয়ার কেয়ার

  • সঠিক শ্যাম্পু সিলেক্ট করাটা খুব জরুরি/চুলের টাইপ অনুযায়ী শ্যাম্পু বেছে নিতে হবে।
  • কাজের আর অন্যান্য চাপে ঠিকমত না খেলে চুল পড়ে কারণ ভিটামিন আর মিনারেল কমে যায়।
  • কাঠের চিরুনি ব্যাবহার করুন।
  • আমলা,শিকাকাই,শুকনো নিমপাতা মিশিয়ে সপ্তাহে ১ বার মাথায় মাখতে পারেন।
  • দিনে দুটো ভেজানো কাঠবাদাম খান।
  • চুলের ব্রাশ,চিরুনি,টাওয়েল,ক্লিপ,রাবার ব্যান্ড আলাদা করে রাখুন।
  • কড়া রোদে আর হাওয়ায় চুল ঢেকে রাখুন।

ডায়েট

  • ২৫ এর পড়ে শরীরে চাহিদা বদলায়। তিসি,আখরোট,সয়াবিন, অলিভ  অয়েল্, ব্রকোলি, বাঁধাকপিতে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি  অ্যাসিড খুব জরুরি।
  • বয়েস বাড়লে ক্যালসিয়ামের আর ভিটামিন ডির ঘাটতি হয়। ডায়েটে দুধ,দুগ্ধজাত খাবার আর সঙ্গে ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার যেমন তৈলাক্ত মাছ,মাংস,অরেঞ্জ জুস্,ডিম রাখতে হবে।

৪১-৫৫

স্কিন কেয়ার

  • সপ্তাহে একবার মুখ-শোঃ সারা শরীরে স্ক্রাবিং করুন।ডেড সেলস ঝরে যাবে।
  • নিত্যনতুন ক্রীম নিয়ে এক্সপেরিমেন্ট কড়া উচিত হবে না।
  • রোদে বেরোনোর আগে মেডিকেটেড সান ব্লক ব্যবহার করুন।

হেয়ার কেয়ার

  • চুল পাতলা হতে শুরু করলে স্পেশালিস্টের পরামর্শ নিন।পাতলা চুল ছোট রাখুন.
  • সাদা চুল ঢাকতে হেনা ব্যবহার করুন।     
  • চুল ভাল রাখতে হেয়ার মাস্ক বা হট অয়েল ট্রিটমেন্ট করুন। 
  • হিট প্রটেকশন সিরাম ব্যবহার করেই ব্লো ড্রায়ার ব্যাবহার করুন।      

     .          

.       

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *