৩টি ৫০ বছরের প্রাচীন রান্না Old Bengali Recipe | |

৩টি ৫০ বছরের প্রাচীন রান্না Old Bengali Recipe

মা ঠাকুমার হারিয়ে যাওয়া স্বাদে আহ্লাদে রেসিপি।

কথায় আছে মাছের নামে গাছও হাঁ করে।মঙ্গলকাব্যে মাছ ও রান্না প্রসঙ্গের নানা উল্লেখ আছে।আমাদের মা ঠাকুমার হেঁসেলের আশ্চর্য সুস্বাদু রান্নার মধ্যে অনেক রান্না আজকের ব্যাস্ত জীবনযাপনে বিলুপ্ত প্রায়। আগেকার দিনের মা,ঠাকুমার হাতে যেন জাদু ছিল। আসলে তাঁরা কেবল রান্না করতেন না, তাঁদের রান্নায় থাকত অনেক ভালোবাসা। আর থাকত ছোট ছোট কায়দা যার গুণেই সব পদ বাজিমাত্‍ করত খাবার পাতে।

মা ঠাকুমার হারিয়ে যাওয়া স্বাদে আহ্লাদে রেসিপি  

মাছের মাথা দিয়ে মোচার ঘন্ট

উপকরণ: মোচা কুটনো (আজকাল বাজারে পাওয়া যায়), মাঝারি আকারের আলু ২টি, ছোট টুকরো করে কেটে নেওয়া রুই মাছের মাথা ১টি,নুন স্বাদমতো, সয়াবিন তেল ৪ টেবিল চামচ, হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ, জিরাবাটা ১ টেবিল চামচ, দারচিনি ৩/৪ টুকরো, পাঁচফোড়ন আধ চা-চামচ, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, রসুন থেঁতো করা ৪/৫ কোয়া, কাঁচা লঙ্কা ৫/৬টি, শুকনো মরিচ ২টি, তেজপাতা ৩টি।

প্রণালি:মাছের মাথা ধুয়ে বেছে লবণ, হলুদ মাখিয়ে নিন।এবার কড়াইয়ে তেল গরম করে মাছের মাথাগুলো কড়া করে ভেজে নিন। সেই তেলে পাঁচফোড়ন, মাঝখানে চিরে দেওয়া তেজপাতা দিয়ে পেঁয়াজকুচি আর থেঁতো করে রাখা রসুনের কোয়াগুলো দিয়ে একটু ভেজে নিন।

পেঁয়াজ, রসুন ভাজা ভাজা হয়ে এলে শুকনো মরিচ ফোড়ন দিয়ে তাতে আলু দিয়ে দিন। লবণ, হলুদ, কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে আলু অল্প করে কষিয়ে কুচোনো মোচা দিয়ে দিন।

এক কাপ জল দিয়ে গ্যাসের আঁচ সিমে রেখে ফ্রাই প্যান বা কড়াই ঢেকে দিন।জল শুকিয়ে এলে ভেজে রাখা মাছের মাথা দিয়ে মিনিট দশেক কষিয়ে নিন। কষানোর সময় অল্প অল্প করে জল দিতে হবে।এরপর জিরেবাটা আর গোটা দারচিনি দিয়ে মাখা মাখা করে নামিয়ে নিয়ে ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

নারকেল চিংড়ি বাটি চচ্চড়ি

সুপ্রাচীন এই রান্না প্রণালী আজকের সুবিধে অনুযায়ী-

উপকরণ: মাঝারি মাপের চিংড়ি – ২৫০ গ্রাম সরষে বাটা – ২ টেবিল চামচ নারকেল কোরা – ২ টেবিল চামচ লাউপাতা কুচনো – ৩ টেবিল চামচ নুন – স্বাদমতো হলুদ – ১ চা চামচ লঙ্কা গুঁড়ো – ১ চা চামচ সরষের তেল – ১ টেবিল চামচ,২টি কাঁচালঙ্কা চেরা/ 

প্রণালী- একটি বাটিতে চিংড়িতে নুন হলুদ মাখিয়ে ৫ মিনিট রেখে দিন। এবার এতে সরষে বাটা, নারকেল কোরা, লঙ্কাগুড়ো, লাউপাতা কুচি দিন।এই ম্যারিনেট করা চিংড়ি মাছের মিশ্রণ দিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন।এবার একটি পাত্রে ভালো ভাবে ঢাকা দিয়ে গ্যাসে গরম জলের পাত্রে দিয়ে ৩০ থেকে প্রায় ৪৫ এই ভাবেই রান্না হবে নারকেলে চিংড়ির বাটিচচ্চড়ি।

মানকচু দিয়ে দেশি মুরগির ঝোল

উপকরণ : মানকচু পরিমাণমতো, মুরগি ১টি, আদা ও রসুন বাটা, পেঁয়াজ বাটা, পেঁয়াজ ভাজা, গরমমশলা গুঁড়া, তেল,নুন স্বাদমতো, হলুদ,মরিচ,ধনে ও জিরে গুঁড়ো, কাঁচালঙ্কা,নারকেল দুধ ১ কাপ।

প্রণালী: মানকচু একটু বড় কিউব করে কেটে নুন হলুদ দিয়ে সেদ্ধ করে জল ঝরিয়ে নিতে হবে।সব মশলা দিয়ে মাংস ভালোভাবে কষাতে হবে। মানকচু দিয়ে ১০ মিনিট কষাতে হবে। এরপর গরম জল  দিয়ে মাংস সেদ্ধ হওয়া পর্যন্ত রান্না করতে হবে।একটা কাঁটা দিয়ে মাংসে সেদ্ধ হয়েছে কিনা দেখতে হবে।নামানোর আগে নারকেল দুধ,পেঁয়াজ ভাজা ঝোলে দিতে হবে। সঙ্গে কাঁচালঙ্কা দিতে হবে। মাংস ঝোল ঝোল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *