২৭ ইন্ডোর প্ল্যান্টস

এই ভয়ঙ্কর অতিমারিতে হতাশ না হয়ে বাড়ির মধ্যে সবুজের ছোঁয়ায় সতেজ,সপ্রাণ থাকুন I

এই ভয়ঙ্কর অতিমারিতে ঘরবন্দি থেকে আমাদের মন প্রাণ সবুজ প্রকৃতি থেকে বিচ্ছিন্ন বলে হতাশ না হয়ে বাড়ির মধ্যে সবুজের ছোঁয়ায় সতেজ,সপ্রাণ থাকুন কারণ ঘরের মধ্যে গাছপালা আমাদের এখনকার বিপর্যস্ত সময়ে নিয়ে আসে তাজা হাওয়া I  

১) এয়ার প্ল্যান্ট -জল মাটি কিছু লাগেনা আর ইনডাইরেক্ট ব্রাইট লাইটI ফাজি,ফারি,স্পাইকি,গোলপানা নানা ধরণের আকারে পাওয়া যায় Iএদের সূর্যের আলোর প্রয়োজন আছে I


২) প্রেয়ার প্ল্যান্ট -ইনডাইরেক্ট ব্রাইট লাইট আর অল্প করে জল দিলেই তাজা থাকেI সাধুভাষায় নাম বার্তোলোমেও মারান্তা Iপ্রেয়ার প্ল্যান্ট নামকরণের কারণ দিনের বেলায় এর আকৃতি সোজা থাকলেও রাত্রে প্রার্থনার সময়ে হাতের ভঙ্গিমা ধারণ করে I


৩)এচেভেরিয়া ইন সিরামিক আউল প্ল্যান্টার- ইনি সেন্ট্রাল আমেরিকা,মেক্সিকো আর সাউথ আমেরিকাঅঞ্চলের বাসিন্দা Iএভারগ্রীন ডিসিডিয়াস প্রজাতিIঘরে যেন আলো বাতাস আসা যাওয়া করে আর প্রতি ১৫ অন্তর জল দিতে হবে I


৪)মান্ড গ্রাস ইন টেরাকোটা লায়ন প্লান্টার -কম আর বেশি আলোতেও ভালো থাকেIরোজ জল দিতে হবেI


৫)আর একধরণের এয়ার প্ল্যান্ট-স্প্যানিশ মস


৬) কোলিয়াস ইন ম্যাক্রমে হ্যাঙ্গার


৭)সেডিয়াম ইন ম্যাক্রমে হ্যাঙ্গার


৮)ওয়াটার ক্যাবেজ- তিন দিন অন্তর জল বদলাতে হবে I


৯) অ্যালোকেশিয়া


১০)অ্যাগলাওমেনা লিপস্টিক


১১) জাপানিজ কোকেডামা স্যান্সভিয়েরা


১২)টার্টল ভাইন


১৩) জেড ইন সিরামিক প্ল্যান্টার


১৪)সাকিউলেন্ট


১৫)হোম ডেকোর প্ল্যান্ট


১৬)ল্যানসিফয়লা


১৭)পথস

ওপরে এই ১৭ টির প্রাপ্তিস্থান বনানী Iঘর সাজানোর গাছ, মনকে আনন্দ দেবার গাছ, চোখের আরাম গাছ, উপহার দেবার গাছ, বা অকারণ গাছ। দৈনন্দিন জীবনে সবুজের ছোঁয়া বনানীর হাত ধরে।গাছ ছাড়া, গাছ রিলেটেড ঘর সাজানোর জিনিষ আছে।যোগাযোগ-8334880100 / 8334016146 Iসুইগি জিনি আর উবর কানেক্টের মাধ্যমে বাড়িতে পৌঁছনোর সুব্যবস্থ্যা আছে I

এছাড়াও এই ইন্ডোর প্ল্যান্টসগুলি জনপ্রিয়-

১৮) স্নেক প্ল্যান্ট -এই প্ল্যান্ট স্যানসেভিয়েরিয়া ট্রাইফাসিয়াটা নামে পরিচিত।রাতেও বাতাসে অক্সিজেন ছেড়ে দূষণ মুক্ত রাখতে সাহায্য করে I মাটিতে অথবা জানলায় স্বাচ্ছন্দে রাখা যায়Iবাথরুমে রাখলে দুর্গন্ধ মুক্ত রাখেI মাদার ইন ল’স টাঙ এই মজার নামেও ডাকা হয় একে।

১৯)এলিফ্যান্টস ইয়ার –  প্রথাগত নাম কালাডিয়াম প্ল্যান্টIএটি ‘আরাশিয়া’প্রজাতির প্ল্যান্ট Iহার্ট শেপের এই প্ল্যান্ট ইন্ডোর এবং আউটডোর সৌন্দয্যে বিখ্যাত Iরেড,গ্রিন,রেড গ্রিন,হোয়াইট রেড নানা রঙে পাওয়া যায় Iএর যত্নের জন্যে প্রখর সূর্যালোকের থেকে আড়ালে রাখা উচিত আর রোজ জল দেওয়া দরকার Iসপ্তাহে ৩/৪ দিন সার দিলে ভালো থাকে I

২০)উইপিং ফিগ -প্রথাগত নাম ফিকাস বেঞ্জামিনা Iমানে এই গাছ তার চোখের জল ফেলে Iচোখের জল ফেলার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা হল বাতাসের আদ্রতা মোচনের কারণে Iঘরে রাখলে সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি ছাড়াও তাপমাত্রা শীতল করতে সাহায্য করে I

২১) বাম্বু পাম-এর বোরো পাতার জন্য খুব সহজেই চারপাশের উষ্ণতা শোষণ করে নেয়/ঘরের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি ছাড়াও ঠান্ডা রাখে Iকিন্তু দিনে ২/৩ বার জল দিতে হবে I

২২)রাবার প্ল্যান্ট-এই গাছের পাতা বড় হয় তাই ঘর ঠান্ডা রাখতে এর জুড়ি মেলা ভারIএর যত্ন বলতে দিনে ২/৩ বার এর গাছের পাতায় জল দিতে হয় I

২৩)পিস লিলি- পিস লিলি আকারে ছোট কিন্তু বাতাস পরিষ্কার করার দারুণ ক্ষমতা রাখে। এই গাছ  বাতাসে মিশে থাকা রাসায়নিক এবং টক্সিন যেমন – ট্রাইক্লোরোথাইলিন, অ্যামোনিয়া, বেনজেন, ট্রাইক্লোরোইথিলিন জাতীয় টক্সিন শুষে নিয়ে বাতাসকে দ্রুত পরিষ্কার করে। গ্রীষ্মকালে এই গাছে আবার ফুলও হয়। এই গাছ ছায়াযুক্ত স্থান ও কম ভেজা মাটিতে রাখলে দ্রুতবৃদ্ধি পায়।

২৪) গার্ডেন মাম-গবেষণায় প্রমাণিত গার্ডেন মাম বাতাস পরিষ্কার করার জন্য অন্যতম সেরা একটি গাছ। এই গাছ ঘরের ভেতরের বাতাস থেকে প্রচুর পরিমাণ অ্যামোনিয়া, বেনজেন, ফর্মালডিহাইড, ট্রাইক্লোরোইথিলিন,জাইলিন দূর করে। এই গাছ লাগানোর সুবিধে হল স্বল্প খরচে ও পরিচর্চায় ঘরের টবে লাগানো যায়।  

২৫) বস্টন ফার্ন- এটি বাড়িতে আনার আগে দেখে নিতে হবে এর জন্য সঠিক পরিবেশ Iবস্টন ফার্নের জন্য চাই অপেক্ষাকৃত  ঠান্ডা জায়গা,আর ইনডাইরেক্ট সানলাইট Iএর পরিচর্যার জন্য মাঝে মাঝে এর পাতায় জল দিতে হবে আর লক্ষ্য রাখতে হবে যে এর মাটি যেন ভিজে থাকে I    

 ২৬)স্পাইডার প্ল্যান্ট- এই গাছ ঘরে দুর্গন্ধ রোধে খুব কার্যকরী আর ঘরের বাতাসকেও পরিশুদ্ধ রাখে বলে একে এয়ার পিউরিফায়ার প্ল্যান্ট বলে I

২৭) তুলসী গাছ –  তুলসী গাছ ঘরে খুব সহজেই রাখা যায়।খুব একটা যত্নের প্রয়োজন হয় না মেন্টেন করতে।পুজোর  কাজে লাগা ছাড়াও এই গাছের বিভিন্ন ঔষধি গুণ রয়েছে।এছাড়াও বাতাসকে পরিষ্কার রাখে এই গাছ।

ইন্ডোর প্ল্যান্টসের পরিচর্যায় মনে রাখবেন

  • এসি বা কুলারের কাছে রাখবেন না I
  • এর বাড়তি পাতা মাঝে মাঝে ছেঁটে ফেলতে হবে I
  • সপ্তাহে একবার গাছে ওষুধ দেওয়া ভাল I
  • গাছ লাগানোর সময় বেলে মাটি ব্যবহার করা শ্রেয় কারণ এই মাটিতে জল দাঁড়ায় নাIইনডোর প্ল্যান্টসের গোড়ায় জল দাঁড়ালে গাছ বেশিদিন বাঁচে না I
  • নাইট্রোজেন, ফসফেট ও পটাশিয়াম রয়েছে, এরকম সার ইনডোর প্লান্টের জন্য আদর্শ।

ছবি- বনানী,ক্রেডিহেলথ,গার্ডেন হাউ,পিন্টারেস্ট I

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *