ছবি:এস্থেটিক সলিউশন্স

২০টি মুখের যত্নের টিপস

বিখ্যাত ডার্মাটোলজিস্ট সচিন ভার্মা আর বিউটিশিয়ান রুবি বিশ্বাসের প্রয়োজনীয় পরামর্শ।

কথায় বলে’মুখ মনের আয়না।মুখের দিকে তাকালেই নাকি মনের কথা বোঝা যায় এমনও কথা আছে। আমাদের শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ মুখের যত্নে বিখ্যাত ডার্মাটোলজিস্ট সচিন ভার্মা আর বিউটিশিয়ান রুবি বিশ্বাসের প্রয়োজনীয় পরামর্শ:

১) ধুলো ময়লা আর মেক-আপের ফলে আমাদের লোমকূপ বুজে যায়।যদি আপনাকে দৈনন্দিন একবার মেক আপ করতেই হয় তাহলে দিনে দুবার,একবার সকালে আর রাতে ত্বকের ক্লিনজিং,টোনিং আর ময়েশ্চারাইজিং জরুরি।

২) ক্লিনজিংয়ের সময় উষ্ণ জলে মুখ ধুয়ে নিন।এতে বুজে যাওয়া ছিদ্র খুলে যায়।এর পর আপনার স্কিনের টাইপ অনুযায়ী ক্লেনজার  লাগিয়ে মাসাজ করুন আর পরে ভেজা তুলো বা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন।

৩)কড়া নয়,হাল্কা ক্লেনজার ব্যবহার করুন।

৪)ক্লিঞ্জিঙ্গের সময় স্কিনের ন্যাচারাল পি এইচ লেভেল বদলে যা টোনার ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।এটা ক্লিনজিংয়ের সময় খুলে যাওয়া ছিদ্র বন্ধ করে।              

৫) স্কিনের হারিয়ে যাওয়া আদ্রতা ফিরিয়ে আনতে স্কিন অনুযায়ী ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।এতে স্কিন ড্ৰাই হয়ে যায় না।অনেকের ধারণা অয়েলি স্কিন হলে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার জরুরি নয়।এটা ভুল ধারণা।

৬)সপ্তাহে এক-দুদিন এক্সফলিয়েশন ট্রিটমেন্ট করুন।এতে ডেড সেলস সরে গিয়ে ত্বক মোলায়েম,নরম,উজ্জ্বল হয়ে ওঠে।

৭)রোজ খুব বেশি কসমেটিক্স ব্যবহার করবেন না।নিজের স্কিন টাইপ অনুযায়ী কসমেটিক্স লাগান আর তা যেন নামি কোম্পানির হয়।

৮) অয়েলি স্কিনে অ্যাকনে,ব্ল্যাক হেডস,হোয়াইট হেডস,ডার্ক স্পটের সমস্যা এড়াতে বেশি তেলের,বাইরের খাবার কম খাওয়া ভাল।

৯)দিনে বেশ কয়েকবার মুখ পরিষ্কার করলে বাড়তি তেল বেরিয়ে যায়।

১০) ড্ৰাই স্কিন হলে গরমজলে চান বাঞ্ছনীয় নয়।

১১) স্নানের পর ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে হালকা করে মুখ মুছুন।

১২)দিনে ৮/১০ গ্লাস জল খান/লেটুস,শশা,গাজর,প্রচুর পরিমানে জল আছে এমন সব্জি,স্যালাড বানালে অলিভ অয়েল আর লেবুর রসের ড্রেসিং।

১৩)ডায়েটে পর্যাপ্ত পরিমাণ বীজ আর বাদাম রাখা ভালো।এতে ওমেগা থ্রি-এস,হেলদি ফ্যাট,ফাইবার রয়েছে।আমন্ড,সূর্যমুখী ফুলের বীজ খুব উপকারী।

১৪)ঘাম ভালো।এছাড়া এক্সারসাইজে মুখে আর সারা শরীরে নিউট্রিয়েন্টস যোগ হয় যা খুব উপকারী।

১৫)সানস্ক্রিন ছাড়া বেরোবেন না।এস পি এফ 30 রিঙ্কেলস,স্পটস,স্কিন লুজ হওয়া আটকায়।

১৬) মুখের অঙ্গ -ভঙ্গির প্রতি নজর দিন/সবসময় বিশেষত রোদের সংস্পর্শে খুব বেশি চোখ মুখ ভ্রু বাঁকিয়ে কথা বলা থেকে বিরত থাকুন কারণ এতে চোখের পাশে,কপালের মাঝে দাগ তৈরী করে।

১৭) চোখের পাশে, নিচের দাগ এড়াতে নিয়মিত আই ক্রীম ব্যবহার করুন,বিশেষত চোখের নিচে।

১৮)মুখের মেক পায়ের অন্যতম প্রধান শত্রু অপরিষ্কার ব্রাশ।লক্ষ্য রাখুন ব্রাশ যেন সবসময় পরিষ্কার থাকে আর যাতে এ থেকে অ্যালার্জি না হয়।

১৯) ডিপ ক্লিনজিংয়ের একটা খুব ভাল উপায় গরম জলের বৌলে লেবুর রস আর গোলাপের পাপড়ি দিয়ে মুখের পাশে একটা টাওয়েল ঘিরে এর বাষ্প নেওয়া।

২০)দিনে ১০/১২ ঘন্টা কম্পিউটার আর ফোনে চোখ রাখার পর সন্ধ্যায়, রাতে চোখ বন্ধ করে পাতার ওপর ঠান্ডা টি ব্যাগস,গ্রিন টির স্যাশে খুব উপকারী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *