স্ক্যাল্প সুস্থ্য রাখার আয়ুর্বেদিক টিপস

নারকেল তেলে নিমপাতা,আমলকি তুলসী…… আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক ডঃ লোপামুদ্রা ভট্টাচার্য্যর পরামর্শ।

আমাদের চুলের সৌন্দর্য্যে স্ক্যাল্প সুস্থ্য রাখা খুব জরুরি তাহলেই পাওয়া যাবে সুন্দর চুল।একে স্বাস্থ্যজ্বল আর রোগমুক্ত রাখার টিপস দিচ্ছেন আয়ুর্বেদিক চিকিৎসক ডঃ লোপামুদ্রা ভট্টাচার্য্য।

১) স্ক্যাল্প রোগমুক্ত থাকলেই পাওয়া যায় একঢাল স্বাস্থ্যজ্বল চুল তাই মাথায় হাওয়া চলাচল করতে দিতে হবে।ঘন তেল বা প্যাক অনেকক্ষণ মেখে রাখলেই মুশকিল।পোরস বন্ধ হয়ে যায়।স্বাভাবিক তেল নিঃসরণে বাধা পায় তাই প্যাক,তেল মেখে কিছু পরে ধুয়ে ফেলতে হবে।

২) মাঝেমধ্যে তেল মাসাজ করতে হবে।এতে ব্লাড সার্কুলেশন ভালো হয়।চুলের গোড়ায় আঙ্গুল দিয়ে হালকা মাসাজ।পছন্দের তেল ব্যবহার করলেও কিন্তু মেখে অনেকক্ষণ থাকা যাবে না।

৩)দিনে অন্তত ২ বার মোটা দাঁতের চিরুনি দিয়ে ধীরে ধীরে চুল আঁচড়ান।এতে স্ক্যাল্প সুস্থ্য থাকে।

৪)উকুন থেকে স্ক্যাল্পে ঘা হতে পারে।নারকেল তেলে নিমপাতা ফুটিয়ে সপ্তাহে দু দিন লাগিয়ে ঘন্টা দুয়েক পরে শ্যাম্পু করে নিতে হবে।উকুন,খুশকি দুই ই দূর হবে।

৫)  এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল স্কিনের তথা স্ক্যাল্পের জন্য খুব ভালো কারণ অন্য তেল চপচপে করে না মাখার থেকে এটা অনেক উপকারী।

৬)পাতিলেবুর রস চায়ের লিকারের সঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে শ্যাম্পু করার পর এতে চুল ধুলে ন্যাচারাল কন্ডিশনারের কাজ দেবে।

৭)তুলসী,জবা,আমলকী সমান পরিমানে মিশিয়ে তিল তেলে ফুটিয়ে ডাবের জলে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগাতে হবে।

৮)একইভাবে তিল তেলে ব্রাহ্মী,আমলকী,ভৃঙ্গরাজ ফুটিয়ে রাখুন .চুলের পুষ্টিতে দারুন উপকারী।

৯) গোক্ষুর,তিলফুল,মধু আর ঘিয়ের প্যাক বানিয়ে কিছুক্ষণ মেখে রেখে ধুয়ে ফেললে চুলপড়া বন্ধ হবে আর চুলের গোড়া শক্ত হবে।

১০)জাতি,করঞ্চ,বরুন আর করবি ফুলের পেস্ট তিল তেলে মিশিয়ে মাখা খুব উপকারী।

১১) শ্যাম্পুতে  অ্যালার্জি হলে রিঠার গুঁড়ো মাথায় মাসাজ করলে উপকার পাওয়া যাবে।শ্যাম্পুর  বদলে রিঠা জলে ফুটিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে এটা সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক।

১২)নিমপাতা আর টক দইয়ের প্যাক তৈরী করে মাথায় মেখে ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন।

১৩)অল্প কর্পূর নারকেল তেলে মিশিয়ে মাখলে চুলের পুষ্টি আর খুশকির যম।

                              

১৪) ৩/৪ টে আমলকী,একগুচ্ছ তুলসীপাতা বেটে জলে দিয়ে মেখে ৩০/৪০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে।

১৫) লেবু আর নিমপাতা বাটা মেখে রেখে একই ভাবে ১৫/২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হবে।                          

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *