কলেজে মেয়েরা পাত্তা দিত না

কলেজে লাজুক,ঠাকুমার ভিডিও প্লেয়ারে অমিতাভ,শাহরুখ,অক্ষয়ের ফিল্ম,লকডাউন,প্রেম,কেরিয়ার, আগামী ছবি নিয়ে অকপট ভিকি কৌশল।

কলেজের লাজুক কিশোর এখনকার বলিউড হার্টথ্রব ভিকি কৌশলের সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে জানালেনঃ

কতটা পথ পেরোলে তবে ভিকি হওয়া যায় ?

কলেজে আমি খুবই লাজুক ছিলাম আর সবসময়ে স্পটলাইটের বাইরে থাকতেই পছন্দ করতাম।এই খ্যাতি,অভিনয়,জাতীয় পুরস্কার এসব কিছু ভাবতেই পারতাম না।

এই লকডাউনকে কিভাবে প্রত্যক্ষ করলেন ?

প্রথমদিকে স্ট্রিক্ট লকডাউনের সময়ে আমরা পরিবারের সকলে ব্যালকনিতে বসে চারপাশের নিস্তব্ধতায় হতবাক হয়ে যেতাম,আর আমরা সবাই পরিবারের কাছে কতটা নির্ভরশীল সেটা মর্মে মর্মে অনুভব করতাম।হাইজিন সম্পর্কে অনেকটা অবহিত হলাম।কে জানত ২০২০ সালে হাত ধোওয়া শিখে প্র্যাকটিস করতে হবে ?

আপনার বাল্যকাল,কৈশোর জীবন

আমি ছেলেবেলায় খুব লাজুক কিন্তু ‘ছুপা রুস্তম’ ছিলাম,দুস্টুমি করে নিষ্পাপ মুখে ঘুরে বেড়াতাম আর বকুনি খেতে দাদা।পড়াশোনাটা মন দিয়ে করতাম আর স্পটলাইট থেকে দূরে থাকতাম।

কি ধরণের সিনেমা দেখতেন ?

ছোটবেলায় আমি অমিতাভ বচ্চনের ভীষণ ফ্যান ছিলাম।পরে গোবিন্দা,শাহরুখ,অক্ষয় কুমারের ছবি খুব দেখতাম,বিশেষত গোবিন্দা।আমি মুম্বাইতে বড় হলেও পাঞ্জাবে ঠাকুমার বাড়িতে ভিডিও প্লেয়ারে অনেক ছবি দেখতাম।

অভিনেতা হবেন এটাই স্বপ্ন ছিল ?

অবচেতনে বোধহয় ছিল।ছোটবেলায় লাজুক হলেও কোনও অকেশনে,পার্টিতে স্টেজে নাচতে লজ্জা করত না বরং এঞ্জয় করতাম।ইঞ্জিনিয়ারিং এ পড়াশোনা করে ক্যাম্পাস ইন্টারভিউ দিয়ে চাকরির সময়ে মনস্থির করেছিলাম অভিনেতা হব।

এই স্টারডম কেমন লাগছে ?

অসম্ভব সুন্দর আর তৃপ্তিদায়ক।লোকে আমায় পছন্দ করছে,অভিনয়ের প্রশংসা করছে,জাতীয় পুরস্কার এই ভালোবাসা দুর্মূল্য কিন্তু এর পাশে এই সোশ্যাল মিডিয়ায় ইনস্ট্যান্ট ট্রোলিং বেশ খারাপ লাগে।স্বস্তির এটাই যে ভালো ফিডব্যাক উদ্দেশ্যপ্রনোদিত কুৎসাকে ঢেকে দেয়।আমি অভিনেতা হতে চেয়েছিলাম কিন্তু এত সমাদর আর খ্যাতি আমি স্বপ্নেও কল্পনা করিনি।ঈশ্বর করুণাময়।

খ্যাতি,যশের ছটায় বদলে গেছেন?

কিছুটা বদল হয়েছে,আমার মনে হয় নিজের প্রতি আত্মবিশ্বাস আর আত্মনির্ভরতা বেড়েছে। কেরিয়ার শুরু সময়ে আমি বেশ কিছুটা অনিশ্চিত ছিলাম।সাফল্য সেই অনিশ্চিয়তা থেকে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে। আর একটা বিষয় হল আমি নিজের বিষয়ে একটু রক্ষণশীল হয়ে পড়েছি কারণ বিখ্যাতদের জীবনের সমস্ত কিছু সবার থেকে আড়ালে রাখাই শ্রেয় বলে মনে করি।

কাছের মানুষরা আপনাকে কিভাবে দেখেন?

মনে হয় একটু একগুঁয়ে,একরোখা।আমার জন্মদিন ১৬ই মে শুনেই লোকে বলে ও এই জন্য তোমার মাথাগরম।কিন্তু আমি নিজে তা মনে করিনা।আমি সারল্য আর আবেগ পছন্দ করি। জটিল বিষয়,ঘোরপ্যাঁচ বুঝিনা।

কেরিয়ার পরিকল্পনায় আপনি ঝুঁকি নেন না অঙ্ক কষে তারপর ডিসিশন নেন ?

না আমি খুব ইন্সটিঙ্কট এর প্রতি নির্ভরশীল,আমি মনে করি তোমার বর্তমানে ১০০% দিলেই ভবিষ্যৎ ভাল হবে।একবার কিছু সিদ্ধান্ত নিলে তার প্রতি সম্পূর্ণ নিমগ্ন হয়ে যাই।এই কাজের বিষয় গভীর চুল চেরা বিশ্লেষণে যাই না।আমি ভগবান, নিয়তির রেখা আর কর্মযোগে প্রবল বিশ্বাসী।

আপনার প্রেম নিয়ে ভয়ঙ্কর কৌতূহল জানেন?নিভৃতে কার সঙ্গে প্রেম করছেন?

এই,এই বিষয়গুলোই আড়ালে রাখতে চাই (হাসি)।

কিন্তু এটাতো বলুন এই সময়ের অন্যতম হট হার্টথ্রব নিজে খুব রোমান্টিক কিনা ?

হ্যাঁ,তাই তো মনে হয় (হাসি)। 

হিডেন ট্যালেন্ট ?

বীণা বাজানো বা হর্স রাইডিং শিখেছি ছবির প্রয়োজনে। কাছের মানুষেরা বলে নাকি আমি ভাল নাচি।সেটা কোনোদিন ফিল্মে করতে পারলে ভাল লাগবে।

২০২১ কি প্ল্যান ?

‘সর্দার উধাম সিং’ছবির মুক্তির জন্য সাগ্রহে অপেক্ষা করছি যে দর্শক ছবিটাকে কিভাবে গ্রহণ করবে। ‘ইমমর্টাল অশ্বত্থামা’ছবিতে কাজের জন্য মুখিয়ে আছি। কবে যে সেটা গিয়ে শুট করতে পারব।অনেক বিশ্রাম তো হল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *